Saturday, July 20, 2024

বাবার স্বাধীন করা দেশ কখনো ব্যার্থ হতে পারে নাহ

Date:

।।রুমাবার্তা ডেস্ক।।

যে দেশ আমার বাবা স্বাধীন করে দিয়ে গেছেন, সেই দেশ কখনো ব্যর্থ হতে পারে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (৭ জুলাই) দুপুরে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে প্রতিটি ক্ষেত্রে যে ভিত্তিটা, সেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব করে দিয়ে গেছেন। এত অল্প সময়ের মধ্যে আমাদের যে সংবিধান দিয়েছেন এবং এত কাজ যে তিনি কীভাবে করে গেছেন, সেটা ভাবতে সত্যি অবাক লাগে। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য, ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যা করার পর বাংলাদেশ আর এগোতে পারেনি। কারণ, প্রতিনিয়ত আমাদের সেনাবাহিনীতে ক্যু, একটার পর একটা খুন হয়েছে। আর হাজার হাজার সৈনিক-অফিসারকে জীবন দিতে হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশে ফেরার পরে ৭ জুন ছয় দফা পালনকালে আমি প্রথম বক্তব্যে বলেছিলাম, আমি সশস্ত্র বাহিনীতে আর কোনো বিধবার কান্না শুনতে চাই না, সন্তানহারা পিতা আর পিতাহারা সন্তানের কান্না শুনতে চাই না। আমার চেষ্টাই ছিল, যারা আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা করবে, তাদের আরও উন্নত ও সমৃদ্ধশালী করা- যেখানে সংঘাত নয়, শান্তি থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাঁচ বছর সরকারে ছিলাম, বাংলাদেশকে চেয়েছিলাম উন্নত করতে। ৪০ লাখ টন খাদ্য ঘাটতি নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলাম, সেই বাংলাদেশকে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করি। এক হাজার ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হতো, চার হাজার ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি করতে সক্ষম হই। এরপর ২০০১ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করতে পারেনি। ২০০১ সালে সরকারে আসতে পারিনি তার কারণ ছিল, আমাদের গ্যাস বিক্রি করার একটা প্রস্তাব ছিল, আমি রাজি হইনি। দেশের সম্পদ বিক্রি করে ক্ষমতায় যাব, সেই দুর্বলতা আমার নেই।

তিনি বলেন, বড় দেশ আমেরিকা, তাদের কোম্পানি গ্যাস তোলে। কিনবে ভারত। এত বড় বড় দেশের বিরুদ্ধে কথা বললে আর ক্ষমতায় থাকা যায় না। কাজেই ২০০১ সালে আমি ভোট বেশি পেলেও সরকার গঠন করতে পারিনি। কিন্তু আমার কোনো আফসোস ছিল না। এরপর অনেক ঝড়-ঝঞ্ঝা পার করে ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবার বিজয়ী হয় এবং সরকার গঠন করে।

বর্তমান সরকারের আমলে জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বড় দেশগুলোকেও এখন বলতে হয়, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। আজকে আমরা বিশ্বের ৩৩তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ। যদি করোনা মহামারি না হতো, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ না হতো, স্যাংশন-কাউন্টার স্যাংশন না হতো, আমরা আরও অনেক এগিয়ে যেতাম।

তিনি বলেন, আজকে গাজায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েল যেভাবে গণহত্যা চালিয়েছে, আন্তর্জাতিকভাবে আমি এর প্রতিবাদ করেছি। যখন যেখানে গিয়েছি, সেখানেই এর প্রতিবাদ করেছি- এখনো করে যাচ্ছি। এভাবে গণহত্যা, নারী-শিশুদের ওপর অত্যাচার- এটা সত্যিই সহ্য করা যায় না। আমরা সবসময় অন্যায়ের প্রতিবাদ করি, ন্যায়ের সঙ্গে থাকি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Share post:

জনপ্রিয়

আরো সংবাদ
Related

কোটা সংস্কারপন্থী শিক্ষার্থীদের আলোচনায় বসতে রাজি সরকার

।।রুমাবার্তা ডেস্ক।। কোটা সংস্কারপন্থী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসতে সম্মতি জানিয়েছে...

দীঘিনালায় সম্প্রতি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে  নগদ অর্থ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

দহেন বিকাশ ত্রিপুরা।।খাগড়াছড়ি।। পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে...

আলীকদমে নব-নির্মিত রত্নানন্দ বৌদ্ধ বিহার ও অনাথ শিশু সেবা কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন

সুশান্ত কান্তি তঞ্চঙ্গ্যাঁ।।আলীকদম।। প্রাকৃতিক সৌর্দযের লীলাভূমি বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার ৩নং...

সরকারি চাকুরিতে ৫% পাহাড়ি কোটা বহালের দাবীতে খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

দহেন বিকাশ ত্রিপুরা।।খাগড়াছড়ি॥ সরকারি চাকুরির সকল গ্রেডে ৫ ভাগ পাহাড়ি...